কুষ্টিয়ায় পুলিশের দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের সনদপত্র বিতরন অনুষ্ঠিত

আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন বাংলাদেশের পুলিশ: এসপি খাইরুল আলম

অথর
সময়েরদিগন্ত.কম:   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :৭ অক্টোবর ২০২১, ৩:১৬ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 12 বার
আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন বাংলাদেশের পুলিশ: এসপি খাইরুল আলম

বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যের পদমর্যাদা ভিত্তিক প্রশিক্ষণের আওতাভুক্ত নায়েক ও কনস্টেবলদের দক্ষতা উন্নয়ন কোর্স- ২ এর আয়োজন করে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (০৭ অক্টোবর) কুষ্টিয়া পুলিশ লাইন্স সম্মেলন কক্ষে দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার মোঃ খাইরুল আলম। তিনি বলেন, প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য হচ্ছে কোন ব্যক্তির জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধি করা এবং দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তন সাধন করে কোন নির্দিষ্ট বিষয়ে তার যোগ্যতার উন্নতি সাধন করা। পুলিশ সুপার কুষ্টিয়া আরো বলেন এ প্রশিক্ষণ পুলিশ সদস্যদের কর্মে আরো দক্ষ ও স্মার্ট করে তোলবে। এক সপ্তাহ মেয়াদী প্রশিক্ষণ পুলিশের বাস্তব কর্মজীবনের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয় নিয়ে কোর্সে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে যা পুলিশের চাকরির শেষ দিন পর্যন্ত কাজে লাগবে।

পুলিশ সুপার খাইরুল আলম আরো বলেন, আমরা বৃটিশ বা পাকিস্তান পুলিশ না; আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের স্বাধীন বাংলাদেশের পুলিশ। এ দেশের জনগনের ট্যাক্সের টাকায় আমদের বেতন হয়। সুতরাং জনসেবা করার মানষিকতা নিয়ে পুলিশে কাজ করতে হবে। এ জন্য মানুষের কথা আন্তরিক ভাবে শুনে তাদেরকে দ্রুত প্রয়োজনীয় সহায়তা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশের জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন যে কনস্টেবল হতে অতিরিক্ত আইজি পর্যন্ত প্রত্যেক পুলিশ সদস্য বছরে অন্তত একবার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন। তার ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) প্রধান অতিথি হিসেবে গত ৫ সেপ্টেম্বর ১০৫টি প্রশিক্ষণ ভেন্যুতে সারাদেশব্যপী পদমর্যাদা ভিত্তিক দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের (১ম ব্যাচ) শুভ উদ্বোধন করেন। পুলিশ সুপার খাইরুল আলম বলেন, জীবনের প্রয়োজনে প্রতিটি মানুষের পেশাগত কাজের উন্নয়েনের জন্য একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রশিক্ষণ গ্রহণের প্রয়োজন হয়।

নায়েক ও কনস্টেবলদের দক্ষতা উন্নয়ন কোর্সের দ্বিতীয় ব্যাচের সমাপনী ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষনার্থীদের মধ্য হতে অনুভুতি ব্যক্তকালে নারী কনস্টেবল /৬১৯ সাদিয়া আফরিন বলেন অপরাধের ধরণ চেঞ্জ হচ্ছে, এর সাথে খাপ খাওয়াতে হলে প্রশিক্ষণ অপরিহার্য এবং এই ধরনের প্রশিক্ষণ প্রতিনিয়ত চলতে থাকলে প্রতিটি পুলিশ সদস্য এখান থেকে অর্জিত জ্ঞান দিয়ে দক্ষভাবে পুলিশি সেবা দিতে পারবে।

কুষ্টিয়ার জেলা পুলিশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই প্রশিক্ষনে নায়েক ও কনস্টেবল পদমর্যাদার ৩৫ জন প্রশিক্ষনার্থী অংশ গ্রহণ করেন এবং প্রতিদিনের শুরুতে ভোর ০৬:৩০ মিনিটে পিটির মাধ্যমে শুরু হয় প্রশিক্ষন কর্মসূচী। অতঃপর প্যারেড, আইন ক্লাশ এবং ১৯ঃ৪৫ ঘটিকায় রাত্রকালীন আইন ক্লাশের মাধ্যমে সমাপ্ত হয় প্রতিদিনের প্রশিক্ষন কর্মসূচীর।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ), হাফিজুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইনসার্ভিস ট্রেনিং সেন্টার কুষ্টিয়া, মনিরুল ইসলাম, ওসি ডিবি, আনিসুল ইসলাম, ইন্সপেক্টর ডিবি, শহীদুজ্জামান, আরওআই রির্জাভ অফিস, জাবিদ হাসান, ইন্সপেক্টর ও প্রশিক্ষক, আজিবর রহমান, আর আই কুষ্টিয়াসহ ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার প্রশিক্ষক এবং নায়েক ও কনস্টেবল পদমর্যাদার প্রশিক্ষনার্থীবৃন্দ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen + ten =