এখনো মামলা হয়নি থানায় : কুষ্টিয়ার পান্টিতে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৯:৩১ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 1493 বার
এখনো মামলা হয়নি থানায় : কুষ্টিয়ার পান্টিতে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগ

সময়েরদিগন্ত.কম ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি পূর্বপাড়া গ্রামে সাকিল তার নিজ বাড়িতে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে গনধর্ষনের পর হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। হত্যার পর ঘরের ঢাবের সাথে ঝুলিয়ে দিয়েছে নিহত প্রেমিকা সালমাকে। এতো বড়ো একটি ঘটনা ঘটলেও এখনো মামলা হয়নি থানায়। ঘটনাটি ঘটেছে প্রেমিক সাকিলের বাড়িতে। সূত্র বলছে, এ বিষয়ে মোটা অংকের টাকা লেনদেন হয়েছে। স্থানীয় মেম্বার মিমাংসার জন্য টাকার লেনদেনের কথা স্বীকারও করেছেন। নিহত সালমার পিতা সবদার জোয়ার্দ্দার থানায় এজাহার দিয়েছে বলে জানা গেছে। নিহত সালমার বাবা বলেন, আমি অশিক্ষিত মানুষ। স্থানীয় রেজাউল জোয়ার্দ্দার আমাকে জানায় থানায় মামলা হয়েছে। যারা আমার মেয়েকে হত্যা করেছে তারা সবাই পলাতক। আমি দুই দিন পর জানতে পারি হত্যা মামলা হয়নি। কুমারখালী থানায় দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা যায়, আসামী সাকিল হোসেন ও সালমা একই সাথে পড়ালেখা করতো। তাদের মধ্যে প্রেম ছিলো। এক পর্যায়ে সালমার অন্যত্র বিয়ে হয়। সূত্র জানায়, সালমাকে বিয়ের প্রলোভনে স্বামীর কাছ থেকে ছাড়িয়ে নেয় সাকিল। এরপর সালমা নিজ বাড়িতে বসবাস শুরু করে ও সাকিলকে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে। গত সোমবার সকালে সাকিল সালমাকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায় এবং কয়েকজন মিলে ধর্ষণ করে হত্যা করে। হত্যার পরে সালমাকে ডাবের সাথে ঝুলিয়ে দেয় বলে অভিযোগ নিহতের পরিবার। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। সালমার বাবার অভিযোগ বাশগ্রাম ক্যাম্পের ইনচার্জ লিপন সরকার ঘটনাস্থল থেকে আসামীদের আলামতও সংগ্রহ করে। এ ব্যাপারে ওসি কুমারখালী জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানায়, কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আসলে মামলা হবে। সাব ইন্সপেক্টর লিপনের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, ময়নাতদন্ত রির্পোটের পর বোঝা যাবে কি হয়েছিলো। তদন্ত চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করে দৈনিক সময়ের দিগন্তের সাথে থাকুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 4 =