৬০ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর ‘নাটক’

নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৪:০২ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 87 বার
৬০ ঘণ্টার শ্বাসরুদ্ধকর ‘নাটক’

সময়েরদিগন্ত.কম ॥ মিরপুরে হঠাৎ গুঞ্জন, ধর্মঘটের ডাক দিতে যাচ্ছেন ক্রিকেটাররা! সোমবার সকালের গুঞ্জন সত্যি প্রমাণিত হলো বেলা তিনটার দিকে। সংবাদ মাধ্যমের সামনে ধর্মঘটের ঘোষণা দিলেন সাকিব-তামিমরা। অনেক নাটকীয়তা-রোমাঞ্চ-উত্তেজনা শেষে বুধবার রাতে আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণায় আপাতত ক্রিকেটাঙ্গনে স্বস্তি। সোমবার বেলা আড়াইটায় ক্রিকেটাররা জড়ো হতে থাকেন মিরপুর স্টেডিয়ামের ইনডোরে। প্রায় ৫০ জনের একটি দল স্টেডিয়াম সংলগ্ন ক্রিকেট একাডেমিতে আসেন তিনটার পরে। এরপরই ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হিসেবে ধর্মঘটের ঘোষণা দেন সাকিব আল হাসান। এরপর একে একে নিজেদের দাবিগুলো তুলে ধরেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, নাঈম ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিক ও ফরহাদ রেজা। ধর্মঘটের ঘোষণা দিয়ে সাকিব বলেন, ‘আমাদের ১১ দফা দাবি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ক্রিকেট থেকে দূরে থাকবো। জাতীয় দল, প্রথম শ্রেণি সহ সব ক্রিকেটার এই ধর্মঘটের অন্তর্ভুক্ত।’ সাকিবের বক্তব্যের পরই সংবাদ মাধ্যমকে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা গণমাধ্যমের সৌজন্যে ক্রিকেটারদের দাবির ব্যাপারে অবগত হয়েছি। আনুষ্ঠানিকভাবে ক্রিকেটাররা এখনও আমাদের কাছে কিছু উপস্থাপন করেনি। খেলোয়াড় এবং বোর্ড আলাদা নয়। ওরা আমাদেরই অংশ। ওদের কোনও দাবি-দাওয়া থাকলে আমরা অবশ্যই দেখবো।’ এরই মধ্যে বিসিবির পরিচালক সহ বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগযোগ করতে ব্যর্থ হয় বিসিবি। আন্দোলনের সঙ্গে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত থাকা এক ক্রিকেটার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘আমরা নিজেদের মধ্যে আলোচনার পরই ফোন বন্ধ রেখেছিলাম। এটা আমাদের পরিকল্পনার অংশ ছিল।’ ক্রিকেটারদের আন্দোলনের ঘোষণার পরদিন অর্থাৎ মঙ্গলবার দুপুরে জরুরি বোর্ড সভায় বসেন বিসিবি কর্মকর্তারা। সভা শেষে সংবাদ মাধ্যমকে বোর্ড প্রধান বলেন, ‘খেলোয়াড়রা আমাদের না জানিয়ে তাদের দাবির কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছে। এতে আমি বিস্মিত। আমি ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। খুব দ্রুত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করা হবে।’ শুধু তাই নয়, ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়েও কথা বলেন নাজমুল হাসান। সংবাদ সম্মেলনে বোর্ড প্রধানের শরীরী ভাষায় মনে হচ্ছিল, তারা যেন যুদ্ধে নামার প্রস্তুতি নিয়ে এসেছেন! বোর্ড প্রধানের আক্রমণাত্মক কথার কারণে ঘোলাটে হয়ে পড়ে পরিস্থিতি। নাজমুল হাসানের সংবাদ সম্মেলনের পর ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না কিছুতেই। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর সাকিব একটি অনুষ্ঠানে জানিয়েছিলেন, সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন তারা। ‘আজ কী হবে?’ এমন শঙ্কা নিয়ে বুধবার সকালে ঘুম ভাঙ্গে ক্রিকেটপ্রেমীদের। সকাল ১১টায় বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন ক্রিকেটারদের আলোচনার আহ্বান জানানোর পর মিরপুরের আকাশের মেঘ কিছুটা হলেও কাটতে শুরু করে। বেলা ১২টার দিকে নাঈমুর রহমান দুর্জয়কে সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যান বোর্ড প্রধান। গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সংবাদ মাধ্যমকে দাবিগুলো মেনে নেওয়ার কথা জানান নাজমুল হাসান। পাশাপাশি ক্রিকেটারদের আলোচনায় বসায় আহ্বান জানিয়ে ফিরে আসেন মিরপুরে। সংকট কেটে যাওয়ার আশায় মিরপুরে তখন সাংবাদিকরা অপেক্ষায়। কিন্তু ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় জানা যাচ্ছিল না তাদের পরিকল্পনা। অবশেষে বেলা চারটায় গুলশানে নিজেদের অবস্থান জানাতে সাংবাদিকদের ডাকলেন সাকিব-মুশফিকরা। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হওয়া সংবাদ সম্মেলনে আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমানকে সামনে রেখে নতুন দুটি দাবির কথা জানান ক্রিকেটাররা। সংবাদ সম্মেলন শেষে নিজেদের মধ্যে কিছুক্ষণ আলোচনার পর মিরপুরে ক্রিকেট বোর্ডে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন সাকিবরা। গুলশান থেকে ক্রিকেটাররা রাত ৯টার দিকে পৌঁছান মিরপুরে, আর মিটিং শুরু হয় সাড়ে ৯টায়। প্রায় দুই ঘন্টা মিটিংয়ের পর সমঝোতায় পৌঁছায় দুই পক্ষ। মিটিংয়ের শুরুতে বোর্ড প্রধান বেশ রূঢ় আচরণ করেছেন ক্রিকেটারদের সঙ্গে! কেন তার ফোন ধরেনি-এই বলে কয়েকজন ক্রিকেটারকে বকা দিয়েছেন নাজমুল হাসান। সংবাদ মাধ্যমের সামনে নিজেও স্বীকার করেছেন সেই কথা, ‘শুরুতে ওদের ওপর খুব রাগ ছিল। তবে এখন আর রাগ নেই। ওদের সব দাবিই মেনে নেওয়া হবে।’ সাকিবও জানিয়েছেন, তাদের আলোচনা ফলপ্রসু হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব দাবি পূরণের আশাবাদও প্রকাশ করেছেন টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। ৬০ ঘণ্টার ধর্মঘট শেষে ক্রিকেটাররা বৈঠকে বসেছেন আবার। যেখানে নিজেদের ঐক্য বজায় রাখার প্রতিজ্ঞা জানিয়ে ঘরে ফিরেছেন সাকিব-তামিমরা।

সংবাদটি শেয়ার করে দৈনিক সময়ের দিগন্তের সাথে থাকুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + 11 =